আজ ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

বাজিতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এ বিভিন্ন ঔষধের বর্জ্য অপসারণ

প্রতিনিধি আমান উল্লাহ: কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. সিনথিয়া তাসমিন এর উপস্থিতিতে গতকাল সোমবার দুপুরে কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্রে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও বর্জ্য অপসারণের জন্য ২৯৯০টি সেপটি বক্স ও ১ লাখ ৭০ হাজার ৫৩৯টি খালি ভায়াল ধ্বংস করা হয়। এসব ঔষধ বক্স অপসারণের জন্য বাজিতপুর পৌরসভার মেয়র আনোয়ার হোসেন আশরাফের সহায়তায় তাদের নিজস্ব গাড়ি দিয়ে এগুলো ধ্বংস করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. সিনথিয়া তাসমিন আবাসিক মেডিকলে অফিসার ডা. মেহেদী হাসান অনিক, মেডিকেল অফিসার রোগ নিয়ন্ত্রন ডা. রাবেয়া আক্তার ও অন্যান্য চিকিৎসকগণ সহ বিভিন্ন কর্মচারীবৃন্দ।
বাজিতপুর কুলিয়ারচর ও কটিয়াদীতে আউস ধানের বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি

বাজিতপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ- কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর, কুলিয়ারচর ও কটিয়াদীতে এবছর প্রায় ৫ হাজার একর জমিতে আউস ধান রোপন করা হয়। সেই আউস ধানে একর প্রতি ৪০-৫০ মন ধান হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে। জানা যায়, এই তিন উপজেলায় উচু অংশে প্রতি বছর আউস ধানের আবাদ হয়ে থাকে। সেই কারণে কৃষকরা বোরো ধানের পাশাপাশি আউস ধানের চাষ করে থাকেন। এতে বোরো ধানের আবাদের চেয়ে আউস ধানের আবাদে খরচ প্রায় অর্ধেক হয়ে থাকে। কিন্তু এই বছর বৃষ্টি কম হওয়ার কারণে আউস ধান অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক বেশি ফলন হয়েছে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন। এছাড়া প্রতি বছর এসব অঞ্চলে আউস ধানের ফলন ভালো হয়ে থাকে। বাজিতপুর উপজেলা কৃষি অফিসার এবিএম রকিবুল হাসান বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছর আউস ধানের ফলন ভালো হয়েছে বলে মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category