আজ ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

আমাকে অনেকেই প্রশ্ন করে,।

প্রতিনিধি বুলবুল মিয়া : কিশোরগঞ্জ জেলা হোসেনপুর উপজেলার কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূঞা বলেন আমি কেনো কৃষক শ্রমিক জনতালীগ সমর্থন করি?এতে আমার লাভ কি?তাদের উদ্দেশ্যে আজকে আমার এই পোস্ট।আশা করছি পুরোটা পড়লে তাদের উত্তর পেয়ে যাবেন।আমার দলের সকল কর্মী হচ্ছে খেটে খাওয়া, কৃষক, শ্রমিক, দিন মজুর।এই দলের কর্মীরা কখনও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনা।আমার দলের নেতা কর্মীরা কখনও দলীয় পদ-পদবীর জন্য গ্রুপিং করেনা।এই দল গনতন্ত্রে বিশ্বাসী।এই দলের এক কর্মী তার সহযোদ্ধা ভাই কে রক্তাক্ত করেনা।এই দলের নেতা-কর্মীরা কখনও দেশের অসহায় মানুষের রক্ত চোষেনা।এই দল সব সময় দেশের অসহায়, সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কথা বলে।এইদল দেশের জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য লড়ে।এই দল মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী।এই দল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ কে ধারণ করে।সব চেয়ে বড় কারণ এই দলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি যিনি যার জন্ম না হলে হয়তো এই দেশ আজও পরাধীনতার শিকলে বন্ধি থাকতো তিনি হচ্ছেন সেই মহান মুক্তিযুদ্ধের জীবন্ত কিংবদন্তী মহানায়ক “বঙ্গবীর সিদ্দিকী বীরউত্তম” ও সাধারণ সম্পাদক যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, যার শরীরের তাজা রক্ত আজও বাংলার মানচিত্রে লেগে আছে তিনি হলেন ” হাবিবুর রহমান তালুকদার খোকা বীরপ্রতীক”।উপরের এই কারণ গুলো এই দেশের কোন রাজনৈতিক দলের মধ্যে নেই আর এ জন্যই আমি “কৃষক শ্রমিক জনতালীগ” সমর্থন করি এবং একজন ইতিহাসের মহানায়কের দলের ক্ষুদ্র একজন কর্মী হতে পেরে আমি গর্বিত,আর
এটাই আমার লাভ।
ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category